ঢাকা ০৫:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ




টাঙ্গাইলের

ভূঞাপুরের অলোয়ায় ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

স্টাফ রির্পোটার :
  • প্রকাশিত : ১২:১৩:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ অগাস্ট ২০২৩ ৫৭৩ বার পঠিত
কালের ধারা ২৪, অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
print news

 ভূঞাপুরের অলোয়ায় ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

স্টাফ রির্পোটারঃ টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে অলোয়া গ্রামে বাবুল মিয়া নামক এক ব্যাক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করেছে ভূঞাপুর থানা পুলিশ। ১ আগষ্ট ২০২৩ মঙ্গলবার সকালে মৃত হাতেম আলীর পুত্র বাবুল মিয়ার লাশ উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয়রা জানান, বাবুল মিয়া দরিদ্র মানুষ। সহজ-সরল লোক। কৃষিকাজ বা দিনমুজুরী হিসেবে কাজ করতেন। কাজ না থাকলে অন্যান্যা কাজও করতেন। মৃত বাবুল মিয়া গতকাল রাত ৯টা পর্যন্তও রাতে স্থানীয় এক দোকানে কাজ করে বাসায় ফিরেছেন। সকালে গুঞ্জনে শুনা যায় বাবুল মিয়া ফাঁসি দিয়ে আত্ম হত্যা করেছে। পরে আমরা সেখানে তার ঘরের সাথেই কাঁঠাল গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ দেখতে পাই। কিন্তু ফাঁসি দেওয়ার লোকের প্রাথমিক যে আলামত থাকে তার সাথে কোন মিল নাই। ধারণা করা হচ্ছে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। নিহতের স্ত্রীসহ ১ পুত্র ও ১ কন্যা রয়েছে বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে ৫নং অলোয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সাধারণত ফাঁসির লাশের লক্ষণ এটা না। পরিবারের পক্ষ থেকে অপমৃত্যুর একটি মামলা করলে এবং লাশ ময়না তদন্ত শেষেই আসল কারণ জানা যাবে।

ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা হলে লাশ ময়না তদন্ত শেষেই ঘটনার আসল তথ্য উৎঘাটন হবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা।




ফেসবুকে আমরা







x

টাঙ্গাইলের

ভূঞাপুরের অলোয়ায় ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত : ১২:১৩:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ অগাস্ট ২০২৩
print news

 ভূঞাপুরের অলোয়ায় ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

স্টাফ রির্পোটারঃ টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে অলোয়া গ্রামে বাবুল মিয়া নামক এক ব্যাক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করেছে ভূঞাপুর থানা পুলিশ। ১ আগষ্ট ২০২৩ মঙ্গলবার সকালে মৃত হাতেম আলীর পুত্র বাবুল মিয়ার লাশ উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয়রা জানান, বাবুল মিয়া দরিদ্র মানুষ। সহজ-সরল লোক। কৃষিকাজ বা দিনমুজুরী হিসেবে কাজ করতেন। কাজ না থাকলে অন্যান্যা কাজও করতেন। মৃত বাবুল মিয়া গতকাল রাত ৯টা পর্যন্তও রাতে স্থানীয় এক দোকানে কাজ করে বাসায় ফিরেছেন। সকালে গুঞ্জনে শুনা যায় বাবুল মিয়া ফাঁসি দিয়ে আত্ম হত্যা করেছে। পরে আমরা সেখানে তার ঘরের সাথেই কাঁঠাল গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ দেখতে পাই। কিন্তু ফাঁসি দেওয়ার লোকের প্রাথমিক যে আলামত থাকে তার সাথে কোন মিল নাই। ধারণা করা হচ্ছে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। নিহতের স্ত্রীসহ ১ পুত্র ও ১ কন্যা রয়েছে বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে ৫নং অলোয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সাধারণত ফাঁসির লাশের লক্ষণ এটা না। পরিবারের পক্ষ থেকে অপমৃত্যুর একটি মামলা করলে এবং লাশ ময়না তদন্ত শেষেই আসল কারণ জানা যাবে।

ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা হলে লাশ ময়না তদন্ত শেষেই ঘটনার আসল তথ্য উৎঘাটন হবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা।