ঢাকা ০২:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ




বানারীপাড়ায় স্ত্রী’র যৌতুক মামলায় স্বামী আটক

নাহিদ সরদার ,বানারীপাড়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত : ১২:১১:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ মার্চ ২০২২ ৯২ বার পঠিত
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
print news

নাহিদ সরদার ,বানারীপাড়া প্রতিনিধিঃ- বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের নরোত্তমপুর গ্রামের ১ মার্চ মঙ্গলবার সকালে মো.হোসাইন খানকে (৩৫) আসামি করে

স্ত্রী সনিয়া বেগম(২৫) নিজে বাদি হয়ে বানারীপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইন ১১(গ) মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ঐ দিনই আসামি কে গ্রেফতার করে বরিশাল জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

মামলার বিষয়ে অসহায় ভুক্তভোগী বলেন, গত ১১ বছর আগে আমার বিয়ে হয়েছে। আমাদের সংসারে ৬ বছরের ছেলে ও ১৬ মাস বয়সের একটা মেয়ে আছে। বিয়ের পর থেকেই স্বামীর মত অনুযায়ী নিজে চলেছি। নিজের ছোট্ট শিশু কে দেশে মা বাবার কাছে রেখে গার্মেন্টসে অনেক বছর চাকরি করে বেতনের টাকা  তার হাতে তুলে দিয়েছি। কিন্তু ৯ মাস আগে ঢাকা থেকে আমাদের গ্রামে পাঠিয়ে দেয় তারপর থেকেে আমার ও সন্তানদের কোন খোঁজ খবর নেয়না। গত কয়েক দিন আগে বাড়িতে এসে আমার কাছে দের লক্ষ টাকা দাবি করেন। আমি এতো টাকা কোথায় পাবো বললে আমার বাবার কাছ থেকে জমি বেচে টাকা নিয়ে আসতে বলেন। এতে আমি রাজি না হলে প্রতিদিনই অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধর করতে থাকে। তাই শশুর,শাশুড়ির কথা অনুযায়ী আমি নিরুপায় হয়ে বানারীপাড়া থানায় মামলা দায়ের করি।

বিজ্ঞাপন

এবিষয়ে বানারীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হেলাল উদ্দিন বলেন,অভিযোগ পাওয়ার পরেই আসামি কে আটক করে নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলায় বরিশাল জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।




ফেসবুকে আমরা







x

বানারীপাড়ায় স্ত্রী’র যৌতুক মামলায় স্বামী আটক

প্রকাশিত : ১২:১১:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ মার্চ ২০২২
print news

নাহিদ সরদার ,বানারীপাড়া প্রতিনিধিঃ- বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের নরোত্তমপুর গ্রামের ১ মার্চ মঙ্গলবার সকালে মো.হোসাইন খানকে (৩৫) আসামি করে

স্ত্রী সনিয়া বেগম(২৫) নিজে বাদি হয়ে বানারীপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইন ১১(গ) মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ঐ দিনই আসামি কে গ্রেফতার করে বরিশাল জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

মামলার বিষয়ে অসহায় ভুক্তভোগী বলেন, গত ১১ বছর আগে আমার বিয়ে হয়েছে। আমাদের সংসারে ৬ বছরের ছেলে ও ১৬ মাস বয়সের একটা মেয়ে আছে। বিয়ের পর থেকেই স্বামীর মত অনুযায়ী নিজে চলেছি। নিজের ছোট্ট শিশু কে দেশে মা বাবার কাছে রেখে গার্মেন্টসে অনেক বছর চাকরি করে বেতনের টাকা  তার হাতে তুলে দিয়েছি। কিন্তু ৯ মাস আগে ঢাকা থেকে আমাদের গ্রামে পাঠিয়ে দেয় তারপর থেকেে আমার ও সন্তানদের কোন খোঁজ খবর নেয়না। গত কয়েক দিন আগে বাড়িতে এসে আমার কাছে দের লক্ষ টাকা দাবি করেন। আমি এতো টাকা কোথায় পাবো বললে আমার বাবার কাছ থেকে জমি বেচে টাকা নিয়ে আসতে বলেন। এতে আমি রাজি না হলে প্রতিদিনই অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধর করতে থাকে। তাই শশুর,শাশুড়ির কথা অনুযায়ী আমি নিরুপায় হয়ে বানারীপাড়া থানায় মামলা দায়ের করি।

বিজ্ঞাপন

এবিষয়ে বানারীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হেলাল উদ্দিন বলেন,অভিযোগ পাওয়ার পরেই আসামি কে আটক করে নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলায় বরিশাল জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।