ঢাকা ০১:১৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ




কর্মজীবী নারীদের জন্য জেলা-উপজেলায় নারী হোষ্টেল করার ঘোষণা-শেখ হাসিনা

কালের ধারা ২৪ ডেস্ক :
  • প্রকাশিত : ১১:৪৬:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২০ ৮০৬ বার পঠিত
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
print news

রাজধানীর বাইরে কর্মজীবী নারীদের জন্য জেলা-উপজেলাতে নারী হোষ্টেল করার ঘোষণা দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

৯ ডিসেম্বর(বুধবার) সকালে রোকেয়া পদক ২০২০ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এ ঘোষণা দেন।গণভবন থেকে অনলাইনে এ অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।সমাজে বিশেষ অবদান রাখায় এবারও বিশিষ্ট ৫ নারীকে রোকেয়া পদক দেওয়া হয়।

২০২০ সালে বেগম রোকেয়া পদক পেয়েছেন নারী শিক্ষায় প্রফেসর ড. শিরিন আক্তার, পেশাগত উন্নয়নের মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বিগ্রেডিয়ার জেনারেল ডাক্তার নাজমা বেগম, মঞ্জুলিকা চাকমা(নারীর আর্থ সামাজিক উন্নয়ন), বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদা আক্তার (নারীর অধিকার অবদান), সাহিত্য ও সংস্কৃতির মাধ্যমে নারী জাগরণের জন্য বেগম মুশতারি শফি।

বিজ্ঞাপন

নারী শিক্ষায় বেগম রোকেয়ার অবদানের কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বেগম রোকেয়ার জন্ম না হলে দেশের মুসলিম মেয়েরা পড়ালেখা শিখতে পারতো কিনা সন্দেহ।

শেখ হাসিনা বলেন, “আজকে মেয়েরা অনেক এগিয়ে গেছে।আমরা চাই, আমাদের মেয়েরা আরও এগিয়ে যাক।কারণ বেগম রোকেয়া পথ দেখিয়ে গেছেন।একটা সমাজকে যদি উন্নত করতে হয় নারীদের সেভাবে গড়ে তুলতে হবে।আমরা শিক্ষার পাশাপাশি কর্মসংস্থানের দিকেও গুরুত্ব দিয়েছি।মেয়েদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার জন্য আমরা ব্যাপকভাবে কাজ করছি।জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মজীবী নারীদের জন্য হোষ্টেল করে দেওয়া হবে।’

সূত্র: গণমাধ্যম।




ফেসবুকে আমরা




x

কর্মজীবী নারীদের জন্য জেলা-উপজেলায় নারী হোষ্টেল করার ঘোষণা-শেখ হাসিনা

প্রকাশিত : ১১:৪৬:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২০
print news

রাজধানীর বাইরে কর্মজীবী নারীদের জন্য জেলা-উপজেলাতে নারী হোষ্টেল করার ঘোষণা দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

৯ ডিসেম্বর(বুধবার) সকালে রোকেয়া পদক ২০২০ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এ ঘোষণা দেন।গণভবন থেকে অনলাইনে এ অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।সমাজে বিশেষ অবদান রাখায় এবারও বিশিষ্ট ৫ নারীকে রোকেয়া পদক দেওয়া হয়।

২০২০ সালে বেগম রোকেয়া পদক পেয়েছেন নারী শিক্ষায় প্রফেসর ড. শিরিন আক্তার, পেশাগত উন্নয়নের মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বিগ্রেডিয়ার জেনারেল ডাক্তার নাজমা বেগম, মঞ্জুলিকা চাকমা(নারীর আর্থ সামাজিক উন্নয়ন), বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদা আক্তার (নারীর অধিকার অবদান), সাহিত্য ও সংস্কৃতির মাধ্যমে নারী জাগরণের জন্য বেগম মুশতারি শফি।

বিজ্ঞাপন

নারী শিক্ষায় বেগম রোকেয়ার অবদানের কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বেগম রোকেয়ার জন্ম না হলে দেশের মুসলিম মেয়েরা পড়ালেখা শিখতে পারতো কিনা সন্দেহ।

শেখ হাসিনা বলেন, “আজকে মেয়েরা অনেক এগিয়ে গেছে।আমরা চাই, আমাদের মেয়েরা আরও এগিয়ে যাক।কারণ বেগম রোকেয়া পথ দেখিয়ে গেছেন।একটা সমাজকে যদি উন্নত করতে হয় নারীদের সেভাবে গড়ে তুলতে হবে।আমরা শিক্ষার পাশাপাশি কর্মসংস্থানের দিকেও গুরুত্ব দিয়েছি।মেয়েদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার জন্য আমরা ব্যাপকভাবে কাজ করছি।জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মজীবী নারীদের জন্য হোষ্টেল করে দেওয়া হবে।’

সূত্র: গণমাধ্যম।