ঢাকা ০১:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




অভিযোগ প্রমাণিত হলে সু চির ১৪ বছরে জেল হতে পারে

কালের ধারা ২৪ ডেস্ক :
  • প্রকাশিত : ০৭:০৪:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ জুন ২০২১ ৬৩১ বার পঠিত

ছবি: অং সান সু চি

কালের ধারা ২৪, অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
print news

মিয়ানমারের সামরিক অভ্যুন্থানে ক্ষমতাচ্যুত হওয়া নেত্রী অং সান সু চির বিচার আগামী সপ্তাহে শুরু হতে যাচ্ছে।৭ জুন(সোমবার)বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার আইনজীবী।সু চির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমাণিত হলে ১৪ বছরের জেল হতে পারে।এদিকে, সব রাজবন্দিকে মুক্তি দিতে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আসিয়ান।

বিজ্ঞাপন

গত ১লা ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে জান্তা সরকার।বন্দি করা হয় দেশটির নেত্রী অং সান সু চিসহ তার দলের শীর্ষ নেতাদের।এরপর সু চির বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগে মামলা করে সামরিক সরকার।

বেশ কয়েকমাস পর সেই মামলার বিচার কাজ শুরু হচ্ছে।৭ জুন(সোমবার) রাজধানী নাইপিদোতে গৃহবন্ধি সু চির সঙ্গে সাক্ষাতের পর তার আইনজীবী খিন মং জাও বলেন, চলতি মাসের ১৪ ও ১৫ জুন আনিত সব মামলার বিচার কাজ শুরু হবে।তিনি আরও বলেন, ‘রাষ্ট্রপক্ষ চলতি মাসেই মামলাটি শেষ করতে চায়।আমাদের পক্ষ থেকেও দ্রুতই মামলা শেষ করতে বলা হয়েছে।আগামী সপ্তাহ থেকে প্রতি সোমবার ও মঙ্গলবার করে বিচারকাজ চলবে।’

মিয়ানমারের নেত্রী সু চির বিরুদ্ধে ব্রিটিশ আমলের অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট ভঙ্গের গুরতর অভিযোগ আনা হয়েছে। এছাড়া ঘুষ গ্রহণের অভিযোগেও মামলা করা হয়েছে। এসব অভিযোগ প্রমাণিত হলে ৭৫ বছর বয়সী সুচিকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করতে হতে পারে।
আরও পড়ুন: জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ




ফেসবুকে আমরা







x

অভিযোগ প্রমাণিত হলে সু চির ১৪ বছরে জেল হতে পারে

প্রকাশিত : ০৭:০৪:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ জুন ২০২১
print news

মিয়ানমারের সামরিক অভ্যুন্থানে ক্ষমতাচ্যুত হওয়া নেত্রী অং সান সু চির বিচার আগামী সপ্তাহে শুরু হতে যাচ্ছে।৭ জুন(সোমবার)বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার আইনজীবী।সু চির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমাণিত হলে ১৪ বছরের জেল হতে পারে।এদিকে, সব রাজবন্দিকে মুক্তি দিতে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আসিয়ান।

বিজ্ঞাপন

গত ১লা ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে জান্তা সরকার।বন্দি করা হয় দেশটির নেত্রী অং সান সু চিসহ তার দলের শীর্ষ নেতাদের।এরপর সু চির বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগে মামলা করে সামরিক সরকার।

বেশ কয়েকমাস পর সেই মামলার বিচার কাজ শুরু হচ্ছে।৭ জুন(সোমবার) রাজধানী নাইপিদোতে গৃহবন্ধি সু চির সঙ্গে সাক্ষাতের পর তার আইনজীবী খিন মং জাও বলেন, চলতি মাসের ১৪ ও ১৫ জুন আনিত সব মামলার বিচার কাজ শুরু হবে।তিনি আরও বলেন, ‘রাষ্ট্রপক্ষ চলতি মাসেই মামলাটি শেষ করতে চায়।আমাদের পক্ষ থেকেও দ্রুতই মামলা শেষ করতে বলা হয়েছে।আগামী সপ্তাহ থেকে প্রতি সোমবার ও মঙ্গলবার করে বিচারকাজ চলবে।’

মিয়ানমারের নেত্রী সু চির বিরুদ্ধে ব্রিটিশ আমলের অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট ভঙ্গের গুরতর অভিযোগ আনা হয়েছে। এছাড়া ঘুষ গ্রহণের অভিযোগেও মামলা করা হয়েছে। এসব অভিযোগ প্রমাণিত হলে ৭৫ বছর বয়সী সুচিকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করতে হতে পারে।
আরও পড়ুন: জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ